November 29, 2021, 6:32 am

জাতিসংঘের প্রস্তাবে নেই রোহিঙ্গা ইস্যু, ভোট দেয়নি বাংলাদেশ-ভারত-চীন-রাশিয়া

সংবাদদাতার নাম:
  • প্রকাশিত: রবিবার, জুন ২০, ২০২১
  • 47 দেখা হয়েছে:

নিউজ ডেস্ক

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মিয়ানমার বিষয়ক গৃহিত প্রস্তাবে রোহিঙ্গা ইস্যু অন্তর্ভুক্ত না থাকায় গভীর হতাশা ব্যক্ত করার পাশাপাশি প্রস্তাবে ভোট দেয়া থেকে বিরত থেকেছে বাংলাদেশ।

গেল শুক্রবার (১৮ জুন) নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মিয়ানমার বিষয়ে পাস হওয়া প্রস্তাবে দেশটির গণতান্ত্রিক সমস্যা, জরুরি অবস্থা, রাজনৈতিক বন্দি, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও আসিয়ানের কেন্দ্রীয় ভূমিকার প্রতি নজর দেয়া হয়েছে। তবে রোহিঙ্গা সমস্যা ও প্রত্যাবাসন বিষয়ে যথাযথ নজর দেয়া হয়নি এবং কীভাবে এ সমস্যা সমাধান করা যাবে সে ব্যাপারেও কিছু বলা হয়নি।

শনিবার (১৯ জুন) রাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে দেশটির জনগণের ওপর প্রাণঘাতী অস্ত্রের ব্যবহার ও সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়ে গেল শুক্রবার (১৮ জুন) জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে একটি প্রস্তাব পাস হয়। তবে ওই প্রস্তাবে ভোট দেয়নি বাংলাদেশ।

ভোট না দেয়ার কারণ ব্যাখ্যায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, জাতিসংঘে গৃহিত প্রস্তাবে রোহিঙ্গা সংকট সমাধান ও প্রত্যাবাসন বিষয়ে কোনও পদক্ষেপের সুপারিশ না থাকায় বাংলাদেশ হতাশ হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা সাধারণ পরিষদের বৈঠকে জাতিসংঘের ওই প্রস্তাবের বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা যা আশা করেছিলাম, এ প্রস্তাব তারচেয়ে কম এবং এ প্রস্তাব একটি ভুল বার্তা দেবে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যদি ব্যর্থ হয় তবে মিয়ানমার কোনও ধরনের দায়বদ্ধতা অনুভব করবে না।’

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কানাডাসহ জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলোর একটি কোর গ্রুপ মিয়ানমার-বিষয়ক প্রস্তাব চূড়ান্ত করেছে। এ ক্ষেত্রে তারা আসিয়ানের সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা করেছে। আসিয়ানের সদস্য দেশগুলো সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় মিয়ানমারের সামারিক নেতাসহ এক শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিয়েছিল। ওই সম্মেলনে যে ৫ দফা প্রস্তাব সবাই মেনে নিয়েছিল, সাধারণ পরিষদে গৃহিত প্রস্তাবে সেটিকে স্বাগত জানিয়ে বাস্তবায়নের আহ্বান জানানো হয়েছে।

এছাড়া জাতিসংঘে গৃহিত প্রস্তাবে মিয়ানমারের সামারিক বাহিনীর প্রতি জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার ও মানবাধিকারের প্রতি সম্মান জানানোর আহ্বান জানানো হয়েছে। সেইসঙ্গে জাতিসংঘের সব সদস্য দেশের প্রতি মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি ঠেকাতে কাজ করতে আহ্বান জানানো হয়েছে।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে পাস হওয়া প্রস্তাবের পক্ষে ১১৯টি ভোট পড়ে। বিপক্ষে ভোট দেয় শুধু বেলারুশ। তবে বাংলাদেশ, ভারত, চীন, নেপাল, ভুটান, লাওস, থাইল্যান্ড, রাশিয়াসহ ৩৬টি দেশ প্রস্তাবে ভোটদানে বিরত থাকে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রস্তাবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বিষয়ে কোনও সুপারিশ করা হয়নি। তাদের ফেরত যাওয়ার জন্য রাখাইনে সহায়ক পরিবেশ তৈরি করার কথা এবং এ সমস্যা তৈরির মূল কারণের বিষয়ে কিছু উল্লেখ করা হয়নি। এসব বিষয় বিবেচেনা করেই বাংলাদেশ ভোট দেয়নি। পাশাপাশি ওআইসি, আসিয়ান ও সার্কভুক্ত অনেক গুরুত্বপূর্ণ দেশও ওই প্রস্তাবে ভোট দেয়নি।

এদিকে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে গৃহিত প্রস্তাবটি খোদ মিয়ানমারও প্রত্যাখ্যান করেছে বলে সিঙ্গাপুরভিত্তিক সংবাদমাধ্যম চ্যানেল নিউজএশিয়ার খবরে জানানো হয়েছে।

এ প্রস্তাব ‘একতরফা অভিযোগ ও ভুল ধারণার’ ভিত্তিতে করা হয়েছে এবং প্রস্তাব মেনে চলার আইনি কোনও ‘বাধ্যবাধকতা নেই’ বলে গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছে মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। © All rights reserved © 2020 ABCBanglaNews24
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102