May 19, 2022, 10:36 pm
তাঁজাখবর
বগুড়ায় বিভাগীয় সাংস্কৃতিক দক্ষতা ও প্রশিক্ষন কর্মশালা সম্পন্ন শাজাহানপুরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন শাজাহানপুরে সৎ বাবার সঙ্গে মায়ের তালাকের কারণে শিশু সামিউলকে হত্যা বগুড়ায় প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে আপওিকর ভিডিও থানায় অভিযোগ শাজাহানপুরে ফসলি জমি থেকে উদ্ধার হওয়া শিশুর লাশের সন্ধান লাভ  শাজাহানপুরের আড়িয়ায় ফসলের ক্ষেত থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার  বিদেশ নয়,এখন বগুড়ার শেরপুরে তৈরি হচ্ছে বিদেশী কৃষি যন্ত্র বগুড়ার শাজাহানপুরে বিদ্যুতায়িত হয়ে টিন মিস্ত্রির মৃত্যু বগুড়ায় ১ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক সম্রাট আসিক গ্রেফতার বগুড়ায় ১৩ বছর পর হত্যা মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার 

দেড়বছর পর কাজিপুরে শিক্ষার্থী ও প্রতিষ্ঠানে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে

সংবাদদাতার নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১
  • 132 দেখা হয়েছে:

 

কাজিপুর প্রতিনিধি : দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর খুলে দেওয়া হয়েছে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কারণে সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে শিক্ষার্থী ও বিদ্যালয়ে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকেই শিক্ষার্থীরা আসতে শুরু করেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই শতভাগ উপস্থিতি দেখা গেছে।
বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের শরীরের তাপমাত্র পরিমাপ করা হচ্ছে। এদিকে সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখতে প্রতিষ্ঠানের সামনে রাখা হয়েছে সাবান ও হ্যান্ড সানিটাইজার। প্রত্যেকটি শ্রেণী কক্ষেও নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে ছাত্র-ছাত্রীদের বসার ব্যবস্থা রয়েছে। কাজিপুরে ২৩৭টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও কারিগরি ৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

গত ২০২০ সালের মার্চ মাসে করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেন সরকার। এরপর সারাদেশের ন্যায় সিরাজগঞ্জের কাজিপুরেও বন্ধ করে দেওয়া হয় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ ১৮ মাস ২৫ দিন বন্ধ থাকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় মনোযোগ রাখতে ভার্চুয়াল ক্লাশ চলে আসছিল। বর্তমানে করোনা সংক্রমন হার কমতে শুরু করায় সরকারী নিয়ম মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সিদ্ধান্তেই আজ রোববার শুরু হয়েছে স্বশরীরে হাজির হয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে সরেজমিনে গিয়ে ফাতেমা, মেঘাই উচ্চ বিদ্যালয়, সোনামুখী উচ্চ বিদ্যালয়, শিমুলদাইড় উচ্চ বিদ্যালয় সহ আরো অনেক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা জানায়, শিক্ষা জীবনে দশম শ্রেনীকে অনেক গুরুত্বপূর্ন মনে করে তারা। কারণ তাদের মাধ্যমিক পরীক্ষা রয়েছে। তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনেক মিস করছিলেন। অনলাইন ক্লাশে ভার্চুয়াল লাইফটা থেকে যায়। বাস্তব লাইফের মত শিক্ষকদের সাথে সম্পর্ক ও বন্ধুদের সাথে সম্পর্ক সহ পড়াশোনায় স্পিড ভালো থাকেনা। নির্দেশনা মেনে চললে আগামিতে তারা নিরাপদে পরীক্ষা দিতে পারবে বলে মনে করে। অনেকদিন পর স্কুলে আসতে পেরে অনেক ভালো লাগছে তাদের। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাশ করতে পেরে আনন্দিত তারা। অনেকদিন পর স্কুলে এসে তাদের দেড় বছরের একঘেঁয়েমী পরিবেশ কাটাতে পেরে বেশ ভালো লাগছে। স্কুলে এসে সহপাঠি সহ শিক্ষকদের দেখেই মনে আনন্দ হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার পর ভার্চুয়াল ক্লাশ করেছে তারা। কিন্তু সেখানে তাদের ভালো লাগেনি। এখন অনেকদিন পর এভাবে স্বশরীরে স্কুলে আসতে পেরে তারা সরকারকে ধন্যবাদ জানায়।

আলমগীর হোসেন, রেজাউল করিম নামের অভিভাবক জানায়, শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসার আগ্রহ থাকলেও অভিভাবকদের মনে করোনা সংক্রমনের ভয় রয়েছে এখনো। কাজিপুর সরকারি মনসুর আলী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রেজাউল করিম রাঙ্গা, সরকারি বঙ্গবন্ধু ডিগ্ৰী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক, মেঘাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল বাকী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয়েছে। এছাড়াও সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার পর ভিতরে প্রবেশ করা সহ সকল প্রকার সরকারী নির্দেশনা মেনে তারা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান শুরু করেছেন। আরো বলেন, এতোদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হলেও তার প্রতিষ্ঠানে শতভাগ উপস্থিতি পাওয়া গেছে। শিক্ষার্থীরা আনন্দ উৎসবের মত প্রতিষ্ঠানে হাজির হয়েছে। তারাও সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধি পালন করছেন।

কাজিপুরমাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শামীম আরা বলেন, দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পরে সরকারের ১১ দফা ও ১৯ দফা মেনে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধান করে শ্রেণী কক্ষে প্রবেশ করবে এবং সারিবদ্ধভাবে শ্রেণীকক্ষ ত্যাগ করবে। সবাই নিয়ম মেনে চলবে। যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ম মানবে না তাদের বিরুদ্ধে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কাজিপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী বলেন, দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রাণোচ্ছলভাব লক্ষ্য করা গেছে। তিনি আরও বলেন, সকল প্রধান শিক্ষক/অধ্যক্ষদের সাথে মতবিনিময় করে সব দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তারা সেভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালাবে। #

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। © All rights reserved © 2020 ABCBanglaNews24
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102