December 8, 2021, 7:51 pm

বাবার সঙ্গে নামাজ পড়তে গিয়ে না ফেরার দেশে জুবায়ের

সংবাদদাতার নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২০
  • 32 দেখা হয়েছে:

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

প্রতিদিনের মতো বাবার সঙ্গে নামাজ পড়তে গিয়েছিল জুবায়ের (৬)। কিন্তু নামাজ শেষে এদিন সে হাসিমুখে বাসায় ফেরেনি। মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ হয়ে ফেরা হলো না তার। ছোট থেকেই নামাজ পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন শিশু সন্তানের। কিন্তু মসজিদে একসঙ্গে ছয়টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র (এসি) বিস্ফোরিত হয়ে জুবায়ের চলে গেছে না-ফেরার দেশে। বাবা জুলহাস দগ্ধ হয়ে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। আর বাইরে স্বজনদের কান্না থামছে না।

মৃত জুবায়েরের মা রহিমা বেগম জানান, তাদের বাসা নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লায়। জুবায়েরের বাবা জুলহাস স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করে। জুবায়ের এলাকার মডেল একাডেমিতে প্লে-শ্রেণিতে পড়তো। বাবার সঙ্গে সে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়েছিল।

রহিমা বেগম বলেন, লোক মারফত খবর পাই যে, মসজিদে আগুন লাগছে। খবর পেয়ে মসজিদে ছুটে যাই। পরে জানতে পারি বাবা-ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। পরে হাসপাতালে আসি।

মৃত জুবায়েরের চাচা মৃতদেহ শনাক্ত করেন। তিনি জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালিয়া উপজেলায়।

শুধু জুলহাসই নয়, বার্ন ইউনিটে ভর্তি জুলহাসসহ বাকি ৩৬ জনের অবস্থাই সংকটাপন্ন। মর্মান্তিক এই ঘটনায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দগ্ধ রোগীদের চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। রাতে রোগীদের দেখতে বার্ন ইউনিটে ছুটে যান স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপররিচালকও।

বার্ন ইউনিটের সহকারী পরিচালক ডা. হুসেইন ইমাম সাংবাদিকদের বলেছেন, দগ্ধদের সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক। সবরাই শ্বাসনালি পুড়ে গেছে। সরকারি ব্যবস্থাপনায় সবার চিকিৎসা চলছে।

নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা তদন্তে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। একই সঙ্গে ছয়টি এসি কেন বিস্ফোরিত হলো এবং এই বিস্ফোরণের সঙ্গে গ্যাস লিকেজ হওয়ার কোনও সংযোগ রয়েছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিসের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের পর তারা মসজিদে গ্যাস ডিটেক্টর দিয়ে ভেতরে প্রায় ৭০ ভাগ মিথেন গ্যাস থাকার বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছেন। অন্যান্য সব বিষয় বিশ্লেষণ করে বিস্ফোরণের প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা।

এর আগে শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিতে নারায়ণগঞ্জের তল্লারবাগ বাইতুর মামুর মসজিদে এসি বিস্ফোরণে ৩৭ জন দগ্ধ হয়। আহতদের মধ্যে ৩২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া আছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। © All rights reserved © 2020 ABCBanglaNews24
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102