October 17, 2021, 3:18 am
তাঁজাখবর
শাজাহানপুর থানা পুলিশ কর্তৃক ১০ কেজি গাঁজা উদ্ধার কাজিপুরে জলবায়ু পরিবর্তন বাস্তুচ্যুতি এবং অভিবাসন বিষয়ক বহু-অংশীজনের সংলাপ উজিরপুরে বিশ্ব খাদ্য দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত শাজাহানপুরে পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন বিএনপি নেতা এনামুল হক শাহীন ধুনটে দুর্গা উৎসবে অর্থ সহায়তা দিলেন এমপি হাবিব ও পুত্র সনি শাজাহানপুরে পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তীর দুর্গামন্ডপ পরিদর্শন বগুড়ার শেরপুরে বিদ্যুৎস্পর্শে ৪ জনের মৃত্যু : বগুড়ায় এক ঘণ্টার জন্য ডিসি কলেজছাত্রী আফিয়া ফেসবুকে কিডনি কেনা-বেচা : সংঘবদ্ধ চক্রের হোতাসহ গ্রেফতার ৫ শাজাহানপুরে হেরোইন সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

শাজাহানপুরে ফুল সজ্জিত পুলিশের গাড়িতে অবসরে ফিরলেন কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী 

সংবাদদাতার নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, অক্টোবর ১, ২০২১
  • 56 দেখা হয়েছে:

 

মিজানুর রহমান মিলন :

বগুড়ার  শাজাহানপুরে ফুল সজ্জিত পুলিশের গাড়িতে অবসরে গেলেন শাজাহানপুর থানায় কর্মরত কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী। চাকুরি থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যাওয়া এই পুলিশ কনস্টেবলের চাকুরির বয়স হয়েছিল ৩৬ বছর ৪ মাস।
কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী একজন ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি। পুলিশ বাহিনীতে জীবনের শেষ দিনটি পর্যন্ত তিনি দায়িত্বশীল আচরণ করেছেন। গত ৩০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার  শাজাহানপুর থানায় তার অবসর জনিত বিদায় অনুষ্ঠানে এক শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এ সময় উঠে আসে কনস্টেবল ওয়াজেদ আলীর ব্যক্তিগত ও চাকুরি জীবনের বিভিন্ন স্মৃতি। জানা যায়, কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন। স্বীয় স্ত্রীকে প্রাণাধিক ভালবাসতেন। কিন্তু সেই স্ত্রী বিধাতার ডাকে সাড়া দিয়ে গত ৬ বছর আগেই দুনিয়া থেকে বিদায় নেন। স্ত্রীর স্মৃতি রোমান্থন করে ডুকরে কেঁদে ওঠেন ওয়াজেদ আলী। তাকে যে কখনো ভোলার নয়! সে ছিল জীবনের সোনালী, স্বপ্নময় ও দুঃখের দিনগুলির সাথী। ওয়াজেদ আলী আর কখনো বিয়ে করেননি। অভাব অনটনের মধ্যেও স্বপ্ন দেখেছে তার স্ত্রীর রেখে যাওয়া দুই সন্তান নিয়ে। লোভ আর লালসা কোনদিন ওয়াজেদ আলীকে স্পর্শ করতে পারেনি। তাইতো চাকুরীর মেয়াদ শেষ হবার তিন বছর পূর্বেই ওয়াজেদ আলী স্বেচ্ছায় অবসরে গেলেন। একান্ত আলাপ চারিতায় জানা যায় ওয়াজেদ আলী এখন বিধাতাকে ডাকতে চান। একান্তে কিছু সময় চান তার মানবজীবনের। তাই প্রায় অর্ধ লক্ষ টাকা মাসিক বেতনের চাকরির মায়া ত্যাগ করে চলে গেলেন অবসরে। বৃদ্ধ বয়সেও কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী ডিউটিতে ছিলেন খুবই কর্তব্যপরায়ণ। পুলিশের চাকরিতে একটানা খাটুনি থাকলেও কনস্টেবল ওয়াজেদ আলীর ছিল এক চিলতে হাসিমাখা মুখ। অবসরে চলে গেলেও তার কোন সম্পদ নেই। রাতের আঁধারে মাথা লুকানোর জন্য টিনের চালা ৩ শতক বাড়ি তার শেষ সম্বল। জীবনের এই প্রান্ত বেলায় কনস্টেবল ওয়াজেদ আলী বলে গেলেন, “সারাজীবন চাকরি করেছি। স্ত্রী, সন্তানদের সময় দিতে পারি নাই। কত মান আর অভিমান নিয়ে মিথ্যে এই জীবন। আমার কোন অপূর্ণতা নাই। বিধাতা যা করেন সব মঙ্গলের জন্যই করেন। আমি সারাজীবন ভেবেছি কখন যেন দেহটি মাটির নিচে চলে যায়! দুনিয়ার মায়া আমি ছেড়ে দিয়েছি। ভাল থাকুক পুলিশ বাহিনী, ভাল থাকুক সারা পৃথিবীর মানুষ।
শাজাহানপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুনের সাথে চাকুরির স্মৃতিচারন করে ওয়াজেদ আলী বলেন, ” স্যার আমাকে খুব ভালবেসেছেন। ওসি স্যার খুব সৎ ও ন্যায়পরায়ণ মানুষ। আমি স্যারর কাছে কখনো আপনি ছাড়া সম্বোধন শুনি নাই। চাকরিজীবনে এগুলোই আমার বড় প্রাপ্তি।”
ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ওয়াজেদ আলী বাংলাদেশ পুলিশের গর্ব। জীবনের সোনালী দিনগুলি তিনি দেশের সেবায় সততার সাথে বিসর্জন দিয়েছেন। আমরা এমন সৎ মানুষের বাকী জীবনের মঙ্গল কামনা করি।
ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন তাকে বিদায় বেলায় ফুল, ক্রেস্ট ও উপহার প্রদান করেন। পুলিশের গাড়িতে পুষ্প সজ্জিত করে ওয়াজেদ আলীকে তার বাড়িতে পাঠানো হয়। বাংলাদেশ পুলিশের এক কনিষ্ঠ নক্ষত্রের অবসর জনিত বিদায়ে কাঁদলো সহকর্মীরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। © All rights reserved © 2020 ABCBanglaNews24
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102