October 18, 2021, 5:06 am
তাঁজাখবর
শাজাহানপুরে ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী ভোটার তালিকায় মৃত বগুড়ায় বিষপানে প্রেমিকার আত্মহত্যা, প্রেমিকের আত্মহত্যার চেষ্টা শাজাহানপুর থানা পুলিশ কর্তৃক ১০ কেজি গাঁজা উদ্ধার কাজিপুরে জলবায়ু পরিবর্তন বাস্তুচ্যুতি এবং অভিবাসন বিষয়ক বহু-অংশীজনের সংলাপ উজিরপুরে বিশ্ব খাদ্য দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত শাজাহানপুরে পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন বিএনপি নেতা এনামুল হক শাহীন ধুনটে দুর্গা উৎসবে অর্থ সহায়তা দিলেন এমপি হাবিব ও পুত্র সনি শাজাহানপুরে পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তীর দুর্গামন্ডপ পরিদর্শন বগুড়ার শেরপুরে বিদ্যুৎস্পর্শে ৪ জনের মৃত্যু : বগুড়ায় এক ঘণ্টার জন্য ডিসি কলেজছাত্রী আফিয়া

সুসম্পর্কের মাধ্যমে চলমান শিক্ষাদান বাস্তবায়ন সম্ভব : ইঞ্জি: মোঃ আতিকুর রহমান

সংবাদদাতার নাম:
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৫, ২০২১
  • 126 দেখা হয়েছে:

মিজানুর রহমান মিলন :

বর্তমান সরকারের এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেন্স কোভিড ভ্যাকসিন বিনামুল্যে জন সাধারনের মাঝে প্রোয়োগ এবং শিক্ষাব্যবস্থা গতিশীল করন । এর জন্য প্রয়োজন জনসচেতনতা যার একটি বড় ভুমিকা রাখতে পারে শিক্ষক,অভিভাবক এবং শিক্ষার্থী। শ্রেণিতে শিক্ষার্থীকে শেখানোর প্রক্রিয়া হলো বিদ্যালয়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক। শিক্ষক ও অভিভাবক এই প্রক্রিয়ার মূল চালিকাশক্তি। শিক্ষক নির্দেশনা প্রদান করবেন এবং শিক্ষার্থী নির্দেশনা অনুসরণ করে শিখতে সক্ষম হবে আর অভিভাবক এটাকে বাস্তবায়ন করবেন। শিক্ষককেন্দ্রিক কৌশল ব্যবহারের পরিবর্তে শিক্ষার্থীকেন্দ্রিক কৌশল ব্যবহারে শিক্ষার্থীরা আগ্রহ ও আনন্দের সঙ্গে শিখে থাকে। শিক্ষার্থীদের ক্ষমতা ও প্রবণতা এবং পাঠের বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে শিক্ষক পদ্ধতি ও কৌশল নির্বাচন করে থাকেন। -শিক্ষক কখনো শিক্ষার্থীকে নিজে কাজ করিয়ে দেবেন না। এতে শিক্ষার্থীর সৃজনশীলতা বিকাশের সুযোগ সীমিত হয়ে যায়। একজন শিক্ষকের কাজ হলো শ্রেণিতে শিক্ষার্থীরা কোনো নির্দিষ্ট পাঠ কীভাবে শিখবে এবং কীভাবে পড়বে তা ঠিক করে দেওয়া। শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষে কাজটি করবে, শিক্ষক শুধু ওই কাজ সম্পাদনে সহায়ক উপায়-উপকরণ প্রদর্শন ও জোগান দেবেন। শিক্ষার্থীদের কাজের মাধ্যমে শিক্ষাকে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দেবেন। প্রয়োজনে শিক্ষার্থীরাই সৃজনশীল প্রশ্ন তৈরি করবে এবং প্রশ্নের সঠিক উত্তর ও পূর্ণাঙ্গভাবে লেখার যোগ্যতা অর্জন করবে।প্রত্যেক অভিভাবককে তার বাসার পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। পাঠ্যপুস্তকের শিক্ষা দীর্ঘস্থায়ী ও বাস্তবভিত্তিক করার জন্য সব শিক্ষার্থীকে বাসায় নিয়মানুসারে অধ্যবসায় করা প্রয়োজন। অভিভাবকের সচেতনতায় বাসায় শিক্ষার্থীর জন্য শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি হয়ে থাকে। প্রত্যেক অভিভাবকের উচিত তার সন্তানের পর্যাপ্ত সময় দেওয়া। শিক্ষা বিষয়ে সর্বশেষ সংস্কার সম্পর্কে ভালোভাবে অবহিত করা। একজন দায়িত্বশীল অভিভাবক হিসেবে তার সন্তানের বিদ্যালয়ের প্রতিদিনের শ্রেণির কাজ, বাড়ির কাজ ও অনুশীলনমূলক পরীক্ষার অগ্রগতির খোঁজ রাখা প্রয়োজন। ফলে নিজ নিজ সন্তানেরা তাদের কাজের প্রতি আরও যত্নবান হবে। শিক্ষাই হল সমাজের মূল চাবিকাঠি। শিক্ষার মাধ্যমেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে নিজ গতিতে। শিক্ষাই পারে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ করা বাস্তবায়ন করতে। তাই আমরা শিক্ষাকে অবহেলা না করে আসুন শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে একটা সুন্দর, সূশীল দেশ গড়ি।বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মধ্যে সম্পর্ক হবে বন্ধুর মতো। প্রত্যেক শিক্ষককে শিক্ষার্থীদের ক্লাসের বাইরে কিংবা একাডেমিক কাজ ছাড়াও কথা বলার সময় দিতে হবে। শিক্ষক যদি শিক্ষার্থীদের সময় দেন তা হলে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ায় ভালো হয়ে উঠবে। শিক্ষার্থীদের কাছে শিক্ষকরা শুধু শিক্ষক নয় অনেকটা গাইড, ফিলোসফারের মতো। কেননা, বাংলাদেশের বাস্তবতায় সব শিক্ষার্থী শিক্ষিত পরিবার থেকে আসে না। তাদের কাছে শিক্ষকরাই হন সবচেয়ে কাছের মানুষ।শিক্ষার্থীদের শুধু পাঠ্যবইয়ের পড়ার মধ্যে পাসের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে মূল্যবোধ শিক্ষা, নৈতিক শিক্ষা, বিনয় ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করার দীক্ষা অবশ্যই আমাদের শিক্ষকদের দিতে হবে। মনে রাখতে হবে শিক্ষক কোন নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত নয় তিনি সমাজেরও শিক্ষক। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নির্ভরতা কমিয়ে মানসিক চাপ মুক্ত করতে সহায়তা করা শিক্ষকের একান্ত দায়িত্ব। এ ক্ষেত্রে অভিভাবকদের ও সমান সচেতনতা প্রয়োজন। চলমান শিক্ষাপদ্ধতির অংশ হিসাবে গত ০৫ আগষ্ট বৃহস্পতিবার সকাল আনুমানিক ১০.০০ ঘটিকার সময় উপজেলার চোপিনগর গ্রামে শিক্ষাথীদের বাড়িতে গিয়ে এস এস সি ভোকেশনাল পরীক্ষার্থীদের হাতে এ্যাইনমেন্ট এবং অভিভাবকদের কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পরামর্শ দিতে গিয়ে উপজেলার সুনামধন্য ফুলকোট নবোদয় কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়ের ট্রেড ইন্সট্রাক্টর ICT4E এ্যাম্বাসেডর (কারিগরি) ও বাংলাদেশ ভোকেশনাল শিক্ষক সমিতি বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি ইঞ্জিঃ মোঃ আতিকুর রহমান উপরোক্ত কথাগুলো বলেন । এ সময় অন্যান্যের মধ্যে অভিভাবক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষার্থী সোহানের বাবা মোঃ জাবদালি, সিয়ামের বাবা মোঃ রায়হান ও তার মা ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। © All rights reserved © 2020 ABCBanglaNews24
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102